১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং ♦ ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ ♦ ১৪ই জমাদিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী ♦ মঙ্গলবার ♦
পঞ্চগড় দেবীগঞ্জে শীতকালীন ছুটিতে ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সামাজিক উদ্যোগ Reviewed by Momizat on .  রেজাউল ইসলাম পঞ্চগড় প্রতিনিধি: যার যার ধর্ম তার তার কাছে,বিভেদ নয় নিজের মাঝে"সব কাজে গর্ব আছে, নিজের কাজে দেশ বাঁচে"এই দুটি স্লোগান নিয়ে দেবীগঞ্জ সরকারি কলেজে  রেজাউল ইসলাম পঞ্চগড় প্রতিনিধি: যার যার ধর্ম তার তার কাছে,বিভেদ নয় নিজের মাঝে"সব কাজে গর্ব আছে, নিজের কাজে দেশ বাঁচে"এই দুটি স্লোগান নিয়ে দেবীগঞ্জ সরকারি কলেজে Rating: 0
You Are Here: Home » প্রচ্ছদ » পঞ্চগড় দেবীগঞ্জে শীতকালীন ছুটিতে ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সামাজিক উদ্যোগ

পঞ্চগড় দেবীগঞ্জে শীতকালীন ছুটিতে ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সামাজিক উদ্যোগ

 রেজাউল ইসলাম পঞ্চগড় প্রতিনিধি: যার যার ধর্ম তার তার কাছে,বিভেদ নয় নিজের মাঝে”সব কাজে গর্ব আছে, নিজের কাজে দেশ বাঁচে”এই দুটি স্লোগান নিয়ে দেবীগঞ্জ সরকারি কলেজে গতকাল সোমবার সকাল ১১ টায় অনুষ্ঠিত হল ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন কর্তৃক পরিচালিত এক বিশেষ সামাজিক সচেতনতা বিষয়ক কর্মশালা।সামাজিক সচেতনা বাড়ানোর লক্ষ্যে মূলত এই কর্মশালা আয়োজন করা হয়।এই বিশেষ কর্মশালায় স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থী সন্তোষ রায় অজয় ও বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী রণজিৎ কুমার রায়।সহযোগী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের ৪ র্থ বর্ষের শিক্ষার্থী প্রদীপ কুমার রায় ও সংস্কৃত বিভাগের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী ডালিম কুমার দেব ও হাজী দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ৩য় বর্ষের ছাত্রী দয়ামনি রায়। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন উক্ত কলেজের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষকবৃন্দ।কর্মশালাটির উদ্বোধন করেন দেবীগঞ্জ সরকারী কলেজের উপাধক্ষ্য জনাব উমাপতি রায়।এই সময় স্বেচ্ছাসেবকবৃন্দ বিভিন্ন সামাজিক সচেতনতামুলক বক্তৃতা দেন।স্বেচ্ছাসেবকবৃন্দ যে সকল বিষয়ের উপর আলোচনা করেন তা হলঃ ১।উচ্চ শিক্ষা ২।সোশ্যাল মিডিয়া ৩।বাল্যবিবাহ ৪।যৌতুক প্রথা ৫।লিঙ্গ বৈষম্য ৬।ইভ-টিজিং ৭।স্কুল থেকে ঝরে পড়া ৮।মাদকাসক্তি ২ঘন্টার এই কর্মশালায় এই সামাজিক সচেতনামুলক বিষয়সমূহ আলোচনা করা হয়।এছাড়াও স্বেচ্ছাসেবকরা তাদের বিভিন্ন অভিজ্ঞতা সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে ভাগাভাগি করেন। এই বিষয়ে সন্তোষ রায়ের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে এই সামাজিক সচেতনতার অনেক গুরুত্ব রয়েছে।সেই লক্ষ্যে এই কর্মশালাটির আয়োজন করা হয়।মূলত সামাজিক দায়বদ্ধতা,নিজের এলাকার প্রতি দায়িত্ববোধ থেকেই এই কর্মশালার আয়োজন করা হয়েছে।আমরা নিজ এলাকার ৪ টি স্কুল এবং ২ টি কলেজে এই কর্মশালার আয়োজন করেছি যাতে তাদের উচ্চশিক্ষার পথ সুগম হয় এবং সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধি পায়”।এই বিষয়ে আরেক স্বেচ্ছাসেবক রণজিৎ কুমার রায় বলেন, “শিক্ষার্থীরা যাতে উচ্চশিক্ষা লাভে উৎসাহী হয় এবং দেশ ও জাতির প্রতি অবদান রাখতে পারে এজন্য তাদেরকে আমরা অনুপ্রাণিত করতে এসেছি। আমরা চাই সবাই একদিন শিক্ষিত হয়ে স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলবো”।এই সময় সাধারণ শিক্ষার্থীরা একটি সুখী ও সুন্দর বাংলাদেশ গড়ার প্রতিজ্ঞা করেন এবং বাল্যবিবাহ না করার,যৌতুক না নেয়ার ও মাদকাসক্ত না হওয়ার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে। এই কর্মশালা বিষয়ে জানতে চাইলে ভূগোল বিভাগের শিক্ষক জনাব সাজেদুল আলম দুলাল বলেন, “নিঃসন্দেহে এটি একটা ভাল উদ্যোগ। এই কলেজের সাবেক শিক্ষার্থীরা তাদের কলেজের দায়বদ্ধতা থেকেই এই কাজটি করেছে।আমরা যারা কলেজের শিক্ষকবৃন্দ আছি আমরা সবাই তাদেরকে সহযোগিতা করার চেষ্টা করেছি।এমন মহতী কাজকে আমি সাধুবাদ জানাই।” ২ঘন্টা এই কর্মশালা টি শিক্ষার্থীদের প্রশ্নোত্তর পর্বের মাধ্যমে শেষ হয়।

Leave a Comment

Scroll to top